মিরসরাই ইজেডে স্থাপিত হচ্ছে জাপানের নিপ্পন ইস্পাত কারখানা

0
85

চট্টগ্রামের মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলে (ইজেড) ১০০ একর জমির ওপর জাপানের নিপ্পন স্টিল অ্যান্ড সুমিতমো মেটাল, যাহা বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম ইস্পাত পণ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান এবং দেশি কোম্পানি ম্যাকডোনাল্ড স্টিল বিল্ডিং প্রডাক্টস লিমিটেডের সঙ্গে যৌথ বিনিয়োগে ইস্পাত কারখানা স্থাপন করবে ।

এর জন্য প্রায় ৫ কোটি ৯২ লাখ ডলার বিনিয়োগ করবে তারা। অর্থনৈতিক অঞ্চলে বার্ষিক ভাড়ার ভিত্তিতে ইজারাকৃত জমিতে কারখানাটি গড়ে তোলা হবে। এতে ইস্পাত উৎপাদনে ৫০ শতাংশ কাঁচামাল স্থানীয়ভাবে সংগ্রহ করা হবে।

গতকাল রোববার বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেজা) সঙ্গে জমি ইজারা-সংক্রান্ত বিষয়ে নিপ্পন অ্যান্ড ম্যাকডোনাল্ড স্টিল ইন্ডাস্ট্রিজ  বেজার কার্যালয়ে একটি চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী,  বাংলাদেশে জাপানি দূতাবাসের চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স ইতো টাকেশি, সেকেন্ড সেক্রেটারি হিগুচি মাসাতোসি, পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন-বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সাবেক সচিব ইশতিয়াক আহমেদ, জাপান এক্সটার্নাল ট্রেড অর্গানাইজেশনের (জেট্রো) স্থানীয় প্রতিনিধি কোগা তাইকি, নিপ্পন স্টিল অ্যান্ড সুমিকিন বুসান করপোরেশনের পরিচালক নোমুরা ইয়োইচি এবং নিপ্পন অ্যান্ড ম্যাকডোনাল্ড স্টিল ইন্ডাস্ট্রিজের চেয়ারম্যান মো. সারোয়ার কামাল। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বেজার নির্বাহী সদস্য ড. এম এমদাদুল হক। এসময় বেজার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশে বিনিয়োগের জন্যই যৌথভাবে নিপ্পন অ্যান্ড ম্যাকডোনাল্ড স্টিল যৌথভাবে এ কোম্পানি গঠন করেছে। শিল্প স্থাপনের শুরুতে তারা বিনিয়োগ করবে ৫০০ কোটি টাকা। এ কারখানায় নানা ধরনের ইস্পাত পণ্য তৈরি করা হবে।

চুক্তি সই অনুষ্ঠানে কোম্পানির চেয়ারম্যান জানান, জমি পাওয়ার পর তারা দ্রুত কারখানা স্থাপনের কাজ শুরু করবেন।

বাংলাদেশে প্রায় ২৬৯টি জাপানি প্রতিষ্ঠানের বিনিয়োগ রয়েছে। বেজায় আসা বিনিয়োগ প্রস্তাবের মধ্যে অনেকগুলোই জাপানি কোম্পানি রয়েছে। তিনি দেশটির উদ্যোক্তাদের বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশের নিশ্চয়তা দেন।

মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলে নিপ্পন অ্যান্ড ম্যাকডোনাল্ড স্টিল ইন্ডাস্ট্রিজের ইস্পাত কারখানা স্থাপনের প্রকল্পটি দুই বছরের মধ্যে বাস্তবায়ন হবে বলে আশা করা হচ্ছে। এখানে উৎপাদিত ইস্পাত পণ্যের বার্ষিক স্থানীয় চাহিদা মূল্য ধরা হয়েছে ১ কোটি ৩৬ লাখ ৪৭ হাজার ডলার।

পবন চৌধুরী বলেন, মহেশখালীতে জাপানের জন্য আরেকটি অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তোলার বিষয়টি বিবেচনা করা হচ্ছে। আরেকটি পর্যটন কেন্দ্র দেশটির উদ্যোক্তাদের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠার আলোচনা চলছে। অনুষ্ঠানে বেজার নির্বাহী সদস্য এমদাদুল হক ও হারুনুর রশিদ, জাপান এক্সটার্নাল ট্রেড অর্গানাইজেশনের প্রতিনিধি কোগা তাইকি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। নিপ্পন অ্যান্ড ম্যাকডোনাল্ড স্টিল ১০০ একর জমির মধ্যে ৬০ একরে ইস্পাতের কারখানা করবে। বাকি ৪০ একরে রাস্তাঘাট, আবাসন, গাছ লাগানো ও ফাঁকা জায়গা হিসেবে রাখার প্রস্তাব দিয়েছে।

নিপ্পনের সর্বশেষ বার্ষিক প্রতিবেদন অনুযায়ী, ২০১৭ সালে তাদের মোট পণ্য বিক্রির পরিমাণ ছিল পাঁচ হাজার ৩৪ কোটি ডলার, যা বাংলাদেশি মুদ্রায় চার লাখ ২৩ হাজার কোটি টাকা।