টানা দরপতন পাঁচ কার্যদিবস

টানা দরপতনের বৃত্ত থেকে বের হতে পারছে না দেশের শেয়ারবাজার। গতকাল প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সবকটি মূল্যসূচকের পতন হয়েছে।

0
55

টানা দরপতনের বৃত্ত থেকে বের হতে পারছে না দেশের শেয়ারবাজার। গতকাল প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সবকটি মূল্যসূচকের পতন হয়েছে। এ নিয়ে টানা পাঁচ কার্যদিবস দেশের শেয়ারবাজারে দরপতন হলো। যদিও এদিন ডিএসইতে বেড়েছে লেনদেনের পরিমাণ। সেই সঙ্গে বেড়েছে লেনদেনে অংশ নেয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম। বাজারটিতে লেনদেনে অংশ নেয়া ১৬৩টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমার তালিকায় স্থান করে নিয়েছে ১২৮টি প্রতিষ্ঠান। আর দাম অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৯টির।

বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বাড়ার পরও ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের তুলনায় নয় পয়েন্ট কমে পাঁচ হাজার ২৬৫ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। অপর দুটি মূল্যসূচকের মধ্যে ডিএসই শরিয়াহ্ সূচক আগের দিনের তুলনায় দুই পয়েন্ট কমে এক হাজার ২১০ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। আর ডিএসই-৩০ আগের দিনের তুলনায় পাঁচ পয়েন্ট কমে এক হাজার ৮৪২ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

দিনভর ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৪৮৭ কোটি ৩৯ লাখ টাকার শেয়ার। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয় ৪৮৩ কোটি ৪৬ লাখ টাকার। টাকার অংকে এদিন ডিএসইতে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে জেএমআই সিরিঞ্জ, মেঘনা লাইফ এবং স্কয়ার ফার্মার শেয়ার।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের সার্বিক মূল্যসূচক সিএসসিএক্স দুই পয়েন্ট কমে নয় হাজার ৭৭৯ পয়েন্টে অবস্থান করছে। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ১৬ কোটি ৯৩ লাখ টাকার শেয়ার। লেনদেন হওয়া ২৪৩টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের মধ্যে দাম বেড়েছে ১১৬টির। বিপরীতে দাম কমেছে ৯২টির। আর অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৫টির দাম।