ইউরিন ইনফেকশনে করনীয়

0
181
প্রিন্ট

আজকাল ইউরিন ইনফেকশন একটি পরিচিত সমস্যা। নারীদের এই সমস্যা বেশি দেখা যায় পুরুষের তুলনায়। মানুষের শরীরের দুটি কিডনি, দুটি ইউরেটার, একটি ইউরিনারি ব্লাডার (মূত্রথলি) এবং ইউরেথ্রা (মূত্রনালি) নিয়ে মূত্রতন্ত্র গঠিত। আর এই রেচনন্ত্রের যে কোনও অংশে যদি জীবাণুর সংক্রমণ হয় তাহলে সেটাকে ‘ইউরিনারি ট্র্যাক্ট ইনফেকশন’বলা হয়। ইউরিন ইনফেকশনের কিছু লক্ষণ। যেমন-

প্রস্রাবে দুর্গন্ধ হওয়া, প্রস্রাব রঙিন হয়ে যাওয়, প্রস্রাবে জ্বালাপোড়া বা ব্যথা অনুভূত হওয়া, একটু পর পর প্রস্রাবের বেগ অনুভব হওয়া, ঠিক মতো প্রস্রাব হওয়া, তলপেটে তীব্র ব্যথা হওয়া, বমি বমি ভাব বা বমি হওয় এবং সারাক্ষণ জ্বর জ্বর ভাব বা কাঁপুনি দিয়ে জ্বর আসা।

ইহা এমন একটি এমনই এক সমস্যা যা একবার হলে বারবার হওয়ার আশঙ্কা থাকে। ঘন ঘন ইউরিনে ইনফেকশনের ওষুধ না খেয়ে কিছু প্রতিকারের মাধ্যমে এই সমস্যার সমাধান করা যেতে পারে।

যেমন-

# প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি যুক্ত খাবার খাওয়া: এটি মুত্রথলি ভাল রাখে এবং প্রস্রাবের সময় জ্বালা ভাব কমাতে সহায্য করে। ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস করতেও সহায়তা করে ভিটামিন সি।অনেক চিকিৎসকই রোগীদের পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন সি খাওয়ার পরামর্শ দেন

# প্রচুর পরিমাণে পানি পান করা: দিনে অন্তত তিন লিটার পানি পান করা উচিত। প্রসাবে হলুদ ভাব দেখা দিলে তা দূর হয়ে যায়।

 # আনারস খাওয়া: ইউরিন ইনফেকশন হলে প্রতিদিন অন্তত এক কাপ আনারসের রস খান। আনারসে ব্রোমেলাইন নামক উপকারী এনজাইম থাকে। গবেষণায় দেখা গেছে, ইউরিন ইনফেকশনে আক্রান্ত রোগীদের সাধারণত ব্রোমেলাইন সমৃদ্ধ অ্যান্টিবায়োটিক দেওয়া হয়।

# আধা চামচ বেকিং সোডা এক গ্লাস পানিতে ভাল করে মিশিয়ে দিনে একবার করে খেলে প্রস্রাবের সময় জ্বালা বা ব্যথা ভাব অনেকটাই কমে যাবে।

ইউরিন ইনফেকশন হলে দুই থেকে তিন দিনের মধ্যে সংক্রমণ কিডনিতে ছড়িয়ে পড়ার ঝুঁকি থেকেই যায়। তাই যত দ্রুত সম্ভব এটি নিরাময় করা উচিত।