শরিয়াহভিত্তিক ব্যাংকের প্রায় ২০ শতাংশ আমানত কমেছে

0
238
প্রিন্ট

আগের তিন মাসের তুলনায় প্রায় ২০ শতাংশ আমানত কমেছে দেশে পরিচালিত শরিয়াহভিত্তিক ব্যাংকগুলোর। বাংলাদেশ ব্যাংকের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নির্ধারিত সীমার অতিরিক্ত ঋণ বিতরণের কারণে আমানত কমে গেছে।

ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড শরিয়াহভিত্তিক ব্যাংকগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বড় ব্যাংক, গত জুলাইয়ে এই ব্যাংকের আমানতের পরিমাণ ছিল ১ হাজার ৩০৭ কোটি টাকা, যা সেপ্টেম্বর শেষে আমাণতের পরিমান ৯৪৭ কোটি টাকায় নেমেছে।

একইভাবে সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংকের আমানত একই সময়ে ১ হাজার ২৭৮ কোটি টাকা থেকে নেমে ১ হাজার ৭ কোটি টাকা, এক্সিম ব্যাংকের আমাণত ৭২০ কোটি টাকা থেকে ৪৫১ কোটি টাকা, শাহজালাল ইসলামী ব্যাংকের ৬৯১ কোটি টাকা থেকে ৫৫৯ কোটি টাকা, ফাস্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের আমাণত ৪৯৩ কোটি থেকে ১২৯ কোটি টাকা এবং ইউনিয়ন ব্যাংকের আমানত ১৯৯ কোটি থেকে ৫৮ কোটি টাকায় নেমেছে।

একই সময়ে আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংকের আমানত বেড়েছে ৮৩ কোটি টাকা। সেপ্টেম্বর শেষে ব্যাংকটির আমানতের পরিমাণ ১ হাজার ৮৬ কোটি টাকায় দাঁড়িয়েছে। তবে আইসিবি ইসলামী ব্যাংকের আমাণত ১৩ কোটি টাকা অপরিবতির্ত রয়েছে।

বাংলাদশ ব্যাংকের জুলাই-সেপ্টেম্বর প্রান্তিকের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আগের তিন মাসের তুলনায় ইসলামী ব্যাংকগুলোর আমানত কমেছে ৫ হাজার ২০২ কোটি টাকা বা ১৯ দশমিক ৫৪ শতাংশ। ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ, এক্সিম ব্যাংক, ফাস্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক, আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক, আইসিবি ইসলামী ব্যাংক, সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক, শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক ও ইউনিয়ন ব্যাংক লিমিটেড পূণার্ঙ্গ ইসলামী ব্যাংকিং কাযর্ক্রম পরিচালনা করছে। এ সব ব্যাংকের মধ্যে পাঁচটি ব্যাংক জুলাই-সেপ্টেম্বর প্রান্তিকে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ঋণ-আমানতের অনুমোদিত সীমা ৯০ শতাংশ অতিক্রম করে ৭ শতাংশ বেশি ঋণ বিতরণ করেছে।

অতিরিক্ত বিনিয়োগের কারণে আমানত কমেছে বলে শরিয়াহভিত্তিক এক্সিম ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ হায়দার আলী মিয়া বলেন। ঋণ-আমানত অনুপাত সীমা চলতি বছরের মার্চ থেকে ৮৯ শতাংশের নিচে নামিয়ে আনার নিদের্শনার বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক জানতে চাইলে তিনি বলেন, ইসলামী ব্যাংক কখনো আমানত সংকটে পড়েনি, বরং অতিরিক্ত আমানত থাকার পর তারা সরকারি ট্রেজারি বিল এবং বন্ডে বিনিয়োগ করতে পারেন না।

২০১৮ সালের তৃতীয় ত্রৈমাসিক প্রতিবেদনে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) বলা হয়েছে, ইসলামী ব্যাংকগুলোর ঋণ বিতরণ ১৪ শতাংশ বেড়েছে। টাকার হিসাবে ঋণের পরিমাণ ২ লাখ ২০ হাজার ৩৪৩ কোটি টাকা। একই সময়ে আমানতের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ২ লাখ ২৭ হাজার ৮১৪ কোটি টাকা। বেড়েছে ১১ দশমিক ৬৭ শতাংশ।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর শেষে শরিয়াহভিত্তিক ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডের কাছে আমানতের সবচেয়ে বড় অংশ রয়েছে। এর পরিমাণ মোট আমানতের ৩৫ দশমিক ৩১ শতাংশ। ব্যাংকটির অতিরিক্ত আমানত রয়েছে ২৭ দশমিক ৫ শতাংশ বা ৯শ’ ৪৭ কোটি টাকা।

দেশে আটটি পূর্ণ‍াঙ্গ ইসলামী ব্যাংক ছাড়াও নয়টি প্রচলিত ব্যাংকের ১৯  ইসলামিক ব্যাংকিং শাখা এবং সাতটি প্রচলিত ব্যাংকের ২৫ ইসলামিক ব্যাংকিং উইন্ডো রয়েছে।