আজ শেষ হচ্ছে আন্তর্জাতিক প্লাস্টিক মেলা

0
89
প্রিন্ট

রাজধানীর বসুন্ধরায় অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক প্লাস্টিক মেলার শেষ দিন আজ। গত বৃহৎপতিবারে (১৭ জানুয়ারি) শুরু হওয়া বাংলাদেশ প্লাস্টিক দ্রব্য প্রস্তুতকারক ও রপ্তানিকারক অ্যাসোসিয়েশনের (বিপিজিএমইএ) ও তাইওয়ানের ইয়র্কার ট্রেড অ্যান্ড মার্কেটিং সার্ভিস কম্পানির যৌথ উদ্যোগে অনুষ্ঠিত ১৪তম আন্তর্জাতিক প্লাস্টিক মেলা শেষ হচ্ছে আজ।

এবারের আন্তর্জাতিক প্লাস্টিক মেলায় বাংলাদেশ ছাড়াও বিশ্বের ১৮টি দেশ অংশ নিয়েছে। দেশগুলো হলো- অস্ট্রেলিয়া, অস্ট্রিয়া, চায়না, মিসর, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, ইটালি, জাপান, পাকিস্তান, সিঙ্গাপুর, দক্ষিণ কোরিয়া, তাইওয়ান, হংকং, থাইল্যান্ড, তুরস্ক, দুবাই, যুক্তরাষ্ট্র এবং ভিয়েতনাম। এতে ৪৮০টি কোম্পানির মোট ৭৮০টি স্টল রয়েছে। যা গত বছরের চেয়ে এবারে কোম্পানির গ্রোথ বেড়েছে ৭ দশমিক ৬৯ শতাংশ।

মেলায় দেশীয় অনেক কোম্পানীগুলোর মধ্যে রয়েছে প্রাণ-আরএফএল, কেপিএল, খান ব্রাদার্স সহ আরো অনেকেই প্লাস্টিক পণ্য প্রদর্শন করছে। মেলায় গৃহস্থালি প্লাস্টিক পণ্য, প্লাস্টিকের আসবাবপত্রসহ নানান ধরনের নিত্যপ্রয়োজনীয় ব্যবহার্য জিনিসপত্র  প্রদর্শন করছে প্রতিষ্ঠার গুলো। এছাড়াও প্লাস্টিকের ব্যাগ সহ বিভিন্ন ধরনের ব্যাগ প্রদর্শন করছে খান ব্রাদার্স।

বিদেশি কোম্পানিগুলোর মধ্যে মেলায় প্লাস্টিক পণ্য তৈরির মেশিন প্রদর্শন করছে চায়নার হাইটিয়ান মার্স নামে একটি কোম্পানি। মেশিনের সাহায়্যে নিমিষেই তৈরি হচ্ছে বিভিন্নধরনের প্লাস্টিক পণ্য। আকৃতিতেও বেশ বড়, এই মেশিনের দাম হাঁকা হচ্ছে ৩০ হাজার ডলার যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ২৪ লাখ ৯০ হাজার টাকা। মেলায় হাইটিয়ান মার্স মেশিনের চাহিদা অনেক বেশি বলে জানান, হাইটিয়ান মার্স ইন্টারন্যাশনাল কোম্পানির সহকারী সেলস ইঞ্জিনিয়ার ফয়সাল আহমেদ। তিনি বলেন বিভিন্ন প্লাষ্টিক কারখানা থেকে আমরা বেশ ভালো সাড়া পাচ্ছি। এবারে মেলায় মেশিনারিজ পণ্য প্রদর্শনে এগিয়ে বিদেশি কোম্পানিগুলো।

বিপিজিএমই ‘র তথ্য মতে, দেশে প্লাস্টিক পণ্য উৎপাদন ও বিপণন হচ্ছে প্রায় ২৫ হাজার কোটি টাকার। এর মধ্য থেকে সরকার ৩ হাজার ৫০০ কোটি টাকার রাজস্ব পায়। এ খাতে মোট ১২ লাখ লোকের কর্মসংস্থান রয়েছে।