বেতন বৃদ্ধির দাবিতে শ্রমিকদের সড়ক অবরোধ

0
301
প্রিন্ট

গতকাল শুক্রবার টাঙ্গাইলের নাহিদ কনটমিলের শ্রমিকরা বেতন ভাতা বৃদ্ধির দাবীতে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে। এ সময় অবরোধ বন্ধ ও শ্রমিকদের শান্ত করার চেষ্টা করেন মালিক পক্ষের লোকজন, কিন্তু পরিস্থতি আরো ঘোলাটে হয়। এতে শ্রমিকরা বিক্ষুব্দ হয়ে কারখানায় ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও নিরাপত্তা কর্মীদের উপর হামলা চালালে দুই নিরাপত্তা কর্মী গুরুতর আহত হয়। এর মধ্যে মো. রাসেল মিয়াকে (৩৫) আশংকাজনক অবস্থায় কুমুদিনী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন।

কারখানার শ্রমিকরা জানায়, বেতন ভাতা বৃদ্ধি ও বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা আদায়ের দাবীতে তাদের এ আন্দোলন। শ্রমিকদের মধ্যে অনেকেই অভিযোগ করে বলেন, গার্মেন্টসে বেতন ভাতা বৃদ্ধি ও বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা দেওয়া হয়েছে, কিন্তু নাহিদ কটন মিলের শ্রমিকদের কোন বেতন ভাতা বৃদ্ধি করেনি এবং কোন সুযোগ সুবিধাও দেয়নি মালিক পক্ষ।

নাহিদ কটন মিলেন শ্রমিকরা দীর্ঘ দিন ধরে ন্যায্য সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। বেতন ভাতা বৃদ্ধির জন্য মালিক পক্ষকে অনুরোধ করা হলেও বেতন ভাতা বৃদ্ধি না করে বরং তাদের বিভিন্ন ভাবে হুমকি, ভয়ভিতি হয়রানি করা হয় এছাড়াও অন্যায় ভাবে চাকুরী থেকে ছাটাই করা হয়। তারা কোন সরকারী ছুটি পায় না। এখন তাদের মুল দাবী হচ্ছে অন্যান্য কারখানার শ্রমিকদের মত তাদের বেতন ভাতা বৃদ্ধি ও সুযোগ সুবিধা এবং অভার টাইমসহ বেতন প্রতি মাসের ৭ তারিখের মধ্যে পরিশোধ করা।

এ ব্যাপারে নাহিদ কটন মিলের ম্যানেজার মো. মোস্তাকিন বলেন, সরকারী সিদ্ধান্তে পোষাক কারখানার কর্মীদের বেতন বৃদ্ধি পেয়েছে। কিন্তু এটা পোষাক করাখানা নয়, কটন মিল। এখানে তুলা থেকে সুতা তৈরি করা হয়। তিনি বলেন, কতিপয় দুস্কৃতিকারী শ্রমিক কর্মচারী, মিলের শান্ত পরিবেশকে অশান্ত করার চেষ্টা করছে। মালিক পক্ষ ও শ্রমিকদের মধ্যে সমস্যা সমাধানের উদ্যোগ নেওয়া হলে শ্রমিকরা তা মেনে নিয়ে কাজে যোগ দিয়েছেন।