দুবাই রুটে চালু হচ্ছে বিমানের বড় ফ্লাইট

0
163
ড্রিমলাইনার
প্রিন্ট

গত বৃহস্পতিবার (১৪ মার্চ) সংযুক্ত আরব আমিরাত আওয়ামী লীগ আয়োজিত এক গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী এডভোকেট মাহবুব আলী বলেন, দেশের অর্থনীতিতে প্রবাসীদের রেমিটেন্স অনেক বড় চালিকাশক্তি। কোনো প্রবাসী মারা গেলে মরদেহ দেশে নিতে হলে অনেক দুর্ভোগে পড়তে হয়। তবে আগামীতে যাতে মরদেহ পাঠাতে দুর্ভোগ পোহাতে না হয় সে ব্যাপারে সরকার সচেষ্ট। তাই প্রবাসীদের মরদেহ বহনের সুবিধার্থে আগামী মাসেই বাংলাদেশ বিমানের বড় ফ্লাইট দুবাই আসবে।

প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, প্রবাসীরা প্রতিনিয়ত বিমানবন্দরে হয়রানির শিকার হন এবং এই হয়রানি থেকে তাদের রেহাই দেয়ার জন্য এ পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।

শারজাহের একটি পাঁচ তারকা হোটেলে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি সিআইপি রাখাল কুমার গোপ। যুগ্ম সম্পাদক জি এম জায়গীরদার, নাসির উদ্দিন কায়সার ও মোর্শেদুল কাদের মুন্নার যৌথ পরিচালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক হাজি মোহাম্মদ ইউসুফ।

এ সময় বিশেষ অতিথি ছিলেন- দুবাই ও উত্তর আমিরাতের কনসাল জেনারেল ইকবাল হোসেন খান, দুবাই বিজনেস কাউন্সিলের সভাপতি মাহাতাবুর রহমান নাসির, কমার্শিয়াল কাউন্সিলর ড. এ কে এম রফিক আহম্মেদ, আওয়ামী লীগের উপকমিটির সাবেক সহসম্পাদক মাহমুদ সালাহ উদ্দিন চৌধুরী, আইয়ুব আলী বাবুল, ইসমাইল গণি চৌধুরী, কাজী মোহাম্মদ আলী, মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম, জি এম জায়গীরদার, মাহাবুব রহমান, শাহ মাকসুদ, মোহাম্মদ আশিক মিয়া, দেলোয়ার আহমেদ, আনছারুল হক, মীর আহমেদ, মোরশেদুল কাদের মুন্না, মীর খালেদ, খোরশেদ মোবারক, আলাউদ্দিন, আকতার হোসেন রাজু, হারুনুর রশিদ, নাজমুল হক, হানিফ ভূঁইয়া, আলতাফ, প্রকৌশলী এনাম, মোহাম্মদ মিজান, শিমুল মোস্তাফা প্রমুখ। এ সময় প্রতিমন্ত্রীকে ফুলেল শুভেচ্ছা ও সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয় প্রবাসী বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে।