মুখের কালো কালো দাগ দূর করুন ঘরোয়া উপায়ে

0
113
প্রিন্ট

মুখের সৌন্দর্য বাড়াতে অনেক মানুষই সবচেয়ে বেশি সচেতন। আর মুখের সৌন্দর্য ধরে রাখতে মুখের ত্বকের নিয়মিত যত্ন নেওয়া প্রয়োজন। মুখের ত্বকের ক্ষেত্রে একটি বড় সমস্যা হল ব্ল্যাক হেডস। শরীরে হরমোনের পরিবর্তনের জন্য অনেকেরই মুখে, বিশেষত নাকে ও থুতনিতে ব্ল্যাক হেডস দেখা যায়।

ব্ল্যাকহেডস-এর এই সমস্যা পুরোপুরি দূর করতে জেনে নিন ৩টি দুর্দান্ত উপায়। হলুদ ও মধুর ব্যবহারে ঘরোয়া উপায় কাজে লাগিয়ে খুব সহজেই ব্ল্যাক হেডসের সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব।

হলুদের ব্যবহার:

প্রাচীন কাল থেকেই রূপচর্চায় হলুদের ব্যবহার হয়ে আসছে। ঘরোয়া চিকিৎসাতেও হলুদের নানা রকম ব্যবহার আমরা অনেকেই জানি। অসাধারণ ওষধিগুণসম্পন্ন এই হলুদ ব্ল্যাকহেডস দূর করতেও অত্যন্ত কার্যকর।

প্রনালী ১: প্রথমে পুদিনা পাতা বেটে রস করে তার সঙ্গে গুঁড়ো হলুদ বা বাটা হলুদ দিয়ে ঘন মিশ্রণ তৈরি করে নিন। এ বার এই মিশ্রণ ত্বকের ব্ল্যাকহেডস আক্রান্ত জায়গাগুলিতে ভাল করে মাখিয়ে দিন। এই প্রলেপ শুকিয়ে গেলে হালকা গরম জল দিয়ে ধুয়ে নিন।

প্রনালী ২: হলুদ, চন্দনের গুঁড়ো এবং কাঁচা দুধ একসঙ্গে মিশিয়ে ঘন করে মিশ্রণ তৈরি করে নিন। এই মিশ্রণ ত্বকের ব্ল্যাকহেডস আক্রান্ত স্থানে মাখিয়ে অন্তত মিনিট পনেরো রাখুন। তার পর জল দিয়ে ভাল করে ধুয়ে নিন।

সপ্তাহে অন্তত দু-তিন বার ব্যবহার করতে পারলে ব্ল্যাকহেডস-এর সমস্যা থেকে দ্রুত মুক্তি পাওয়া সম্ভব।

মধুর ব্যবহার:

মধু একটি উচ্চ ওষধিগুণসম্পন্ন ভেষজ তরল। ভেষজ পদ্ধতিতে রূপচর্চার ক্ষেত্রে যুগ যুগ ধরে মধু ব্যবহৃত হয়ে আসছে। রূপচর্চায় মধু আজও অপরিহার্য।

প্রথমে মুখ ভাল করে ধুয়ে নিন। এ বার পরিষ্কার মুখে ব্ল্যাকহেডস আক্রান্ত অংশে ভাল করে মধু মাখিয়ে রাখুন। শুকিয়ে গেলে সামান্য উষ্ণ জলে মুখ ধুয়ে ফেলুন। মধু ত্বককে কোমল রাখার পাশাপাশি লোমকূপকে সংকুচিত রেখে ত্বককে টানটান রাখতে সাহায্য করে। ফলে ব্ল্যাকহেডস-এর সমস্যা থেকে দ্রুত মুক্তি পাওয়া।