টানা তিন কার্যদিবসে ডিএসইএক্স–এর পতন

0
51
প্রিন্ট

ফের পতন চলছে দেশের প্রধান শেয়ার বাজার ডিএসইতে। টানা তিন কার্যদিবসে প্রধান সূচক ডিএসইএক্স কমেছে ১২২ পয়েন্ট। সূচকটি ফের পাঁচ হাজার ২০০ পয়েন্টের ঘরে নেমে এসেছে। পাশাপাশি গত তিন কার্যদিবসে লেনদেন কমেছে ২০০ কোটি টাকার বেশি। লেনদেন নেমে এসেছে ৩০০ কোটি টাকার ঘরে। সেই সঙ্গে বাজার মূলধন কমেছে সাড়ে ৭ হাজার কোটি টাকার বেশি।

ডিএসইতে মোট লেনদেনের ১৩ শতাংশ হয় প্রকৌশল খাতে। এ খাতে মাত্র ৩৮ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। এ খাতে এসএস স্টিলের সোয়া ৬ কোটি টাকা লেনদেনের পাশাপাশি দর বেড়েছে ১ টাকা ৩০ পয়সা। কোম্পানিটি দরবৃদ্ধির শীর্ষ দশে উঠে আসে। এছাড়া আফতাব অটো ৩.৫৭ শতাংশ বেড়ে শীর্ষদশের মধ্যে অবস্থান করে। আগের কার্যদিবসের তুলনায় ৩ শতাংশ বেড়ে চামড়া শিল্প খাতে লেনদেন হয় ১২ শতাংশ। এ খাতের ফরচুন শুজের প্রায় ৩২ কোটি টাকা লেনদেন হয়ে শীর্ষে উঠে কোম্পানিটি। তবে লিগ্যাসি ফুটওয়্যারের ৬ কোটি টাকা লেনদেন হলেও ১ টাকা দরপতন হয়। ওষুধ ও রসায়ন খাতে ১২ শতাংশ লেনদেন হয়। এ খাতে ২৩ শতাংশ কোম্পানির দর ইতিবাচক ছিল। ইন্দোবাংলা ফার্মার সাড়ে ১০ কোটি টাকা লেনদেনের পাশাপাশি দর বেড়েছে ৬০ পয়সা। বস্ত্র খাতে লেনদেন হয় ১১ শতাংশ। এ খাতে ৩৮ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। এসক্যোয়ার নিটের প্রায় ১৪ কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে দুই টাকা। কোম্পানিটি দরবৃদ্ধির শীর্ষ দশে উঠে আসে।

গতকাল সিরামিক খাতে লেনদেন বেড়েছে ৬ শতাংশ। এ খাতের স্ট্যান্ডার্ড সিরামিকের দর ৭ শতাংশ বেড়ে দরবৃদ্ধির শীর্ষে অবস্থান করে। অন্যদিকে মুন্নু সিরামিকের প্রায় ২৫ কোটি টাকা লেনদেন হলেও প্রায় ২১ টাকা দরপতন হয়। ব্যাংক খাতে ৯ শতাংশ লেনদেন হলেও ৪৭ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। ন্যাশনাল ব্যাংকের সোয়া ৬ কোটি টাকা লেনদেনের পাশাপাশি দর বেড়েছে ৩০ পয়সা। কোম্পানিটি দরবৃদ্ধির শীর্ষ দশে অবস্থান করে। জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতে প্রায় ৫৩ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। পাওয়ার গ্রিড কোম্পানির প্রায় ১০ কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে ৯০ পয়সা। এছাড়া বিমা খাতের কর্ণফুলী ইন্স্যুরেন্স, রিলায়েন্স ইন্স্যুরেন্স এবং খাদ্য খাতের এপেক্স ফুড দরবৃদ্ধির শীর্ষ দশে উঠে আসে। এছাড়া সিমেন্ট খাতে ৭১ শতাংশ, পাট ও ভ্রমণ এবং অবকাশ খাতে ৬৬ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে।