আগামী অর্থবছরে আয়করদাতা ১ কোটিতে আনা হবে

0
68
প্রিন্ট

আগামী ২০১৯-২০ অর্থবছরে আয়করদাতার সংখ্যা এক কোটিতে নিয়ে যেতে চায় সরকার। বাংলাদেশের প্রায় ১৭ কোটি মানুষের মধ্যে ই-টিআইএনধারীর সংখ্যা মাত্র ৪০ লাখ। তাদের মধ্যে কর বিবরণী জমা দেয় মাত্র ২০ লাখ। কর আদায়যোগ্য মানুষ খুঁজে বের করতে সারাদেশে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করার প্রকল্প গ্রহন করেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। এ জন্য ১০ হাজার জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে।

রাজধানী ঢাকা শহর থেকেই ৪০ লাখ নতুন করদাতা খুঁজে বের করা যাবে বলে আশা করা হচ্ছে। এ ছাড়া কর আদায় বাড়াতে জেলা-উপজেলায় স্থাপন করা হবে অফিস।

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, আমরা কিন্তু অনেক কঠিন কাজে নামছি। ২০ লাখ থেকে প্রথম বছরে করদাতা সংখ্যা আমরা এক কোটি করতে চাই। যারা কর প্রদানে উপযুক্ত তাদেরই করের আওতায় আনা হবে। আওতা বাড়িয়ে এসব মানুষকে যদি করের আওতায় আনতে পারি, তা হলে আমাদের ট্যাক্স জিডিপির অনুপাত অনেক বেড়ে যাবে।

এনবিআর চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া বলেন, রাজস্ব আহরণে সাসটেইনেবল গ্রোথ দরকার। এ জন্য উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। তবে কোনোভাবেই করদাতাদের ওপর চাপ তৈরি করে করা হবে না। এ জন্য নতুন করে করদতা খোঁজা হচ্ছে।

আয়কর আহরণ বাড়াতে বহুমুখী উদ্যোগ নিয়েছে এনবিআর। এর মধ্যে ঢাকা শহরে বাড়ির মালিক ও ফ্ল্যাটের মালিকদের ওপর জরিপ চালানো হবে এবং বিভাগীয় শহরগুলোতেও একই ধরনের জরিপ চালানো হবে। জেলা শহর ও উপজেলা শহরগুলোতেও ইহা বিদ্যমান থাকবে।

অন্যদিকে বিদ্যমান জনবলকে সর্বোচ্চ কাজে লাগানোর পাশাপাশি রাজস্ব আদায়ের ক্ষেত্রে আউটসোর্স করা হবে। এ জন্য বিভিন্ন কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় ১০ হাজার ছাত্রছাত্রীদের অস্থায়ী ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে।

তাদের কাজ হবে আয়কর আদায়যোগ্য মানুষ খুঁজে বের করা। অনেকটা খানা জরিপের মতো তারা বিভিন্ন বাড়ি ও ফ্ল্যাটে গিয়ে পরিবারভিত্তিক সদস্যের আয়ের উপাত্ত সংগ্রহ করবেন। পরে এই উপাত্তগুলো আয়কর অফিসে জমা দেওয়া হবে। এর ওপর ভিত্তি করে এনবিআর সম্ভাব্য আয়করদাতার সন্ধান পাবে এবং তাদের আয়করের আওতায় নিয়ে আসা হবে।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. হাবিবুর রহমান বলেন, দেশের ৯৫ শতাংশ মানুষ কর দেয় না। আগামী অর্থবছরে ১ কোটি মানুষকে করের আওতায় আনা হবে। এ জন্য আয়কর মেলা, উপজেলা পর্যায়ে অফিস স্থাপন করা হবে। পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থীদের অস্থায়ী নিয়োগ দিয়ে করদাতাদের খুঁজে বের করা হবে।