বাংলাদেশ বিমান বহরে যুক্ত হচ্ছে তৃতীয় ড্রিমলাইনার ‘গাঙচিল’

প্রিন্ট

আগামীকাল বৃহস্পতিবার বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বহরে যুক্ত হচ্ছে তৃতীয় বোয়িং ৭৮৭ ড্রিমলাইনার ‘গাঙচিল’। উড়োজাহাজটি আনতে বিমানের পরিকল্পনা বিভাগের পরিচালকের নেতৃত্বে ২৪ কর্মকর্তা যুক্তরাষ্ট্রে বোয়িং অফিস সিয়াটলে গেছেন। আজ রাতে এটি সিয়াটল থেকে ঢাকার উদ্দেশে উড্ডয়ন করবে।

বিমান সুত্রে জান গেছে, উড়োজাহাজটি আনতে ইতোমধ্যে সিয়াটলে চলে গেছেন বেসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রণালয়ের একজন অতিরিক্ত সচিব, বিমান পরিচালনা পর্ষদের ২ জন সদস্য, বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের ২ কর্মকর্তা, অর্থ মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা, আইন মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা, বাংলাদেশ ব্যাংকের একজন কর্মকর্তা, সোনালী ব্যাংকের এক কর্মকর্তা, বিমানের ফ্লাইট সার্ভিস থেকে ৫ জন, ফ্লাইট অপারেশন থেকে ৩ জন এবং ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ৬ জন। এ প্রসঙ্গে বিমানের উপ-মহাব্যবস্থাপক তাহেরা খন্দকার বলেন, উড়োজাহাজটি ২৫ জুলাই বৃহস্পতিবার দেশে আসবে। এতে বিমানের ফ্লাইট বৃদ্ধি ও নতুন রুট বাড়ানো সম্ভব হবে।

বিমান জানিয়েছে, আধুনিক প্রজন্মের এ চারটি ড্রিমলাইনার উড়োজাহাজের নাম পছন্দ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেগুলো হলো- ‘আকাশবীণা’, ‘হংসবলাকা’, ‘গাঙচিল’ ও ‘রাজহংস’। এদের মধ্যে প্রথম দুটি উড়োজাহাজ যাত্রী পরিবহন করছে। ‘গাঙচিল’ যুক্ত হলে ড্রিমলাইনারের সংখ্যা হবে তিনটি। ২৭১ আসন বিশিষ্ট ড্রিমলাইনার ‘গাঙচিল’-এ বিজনেস ক্লাস ২৪ ও ইকোনমি ক্লাস ২৪৭টি আসন রয়েছে। বিজনেস ক্লাসের আসন ১৮০ ডিগ্রী পর্যন্ত সম্পূর্ণ ফ্ল্যাটবেড করা সম্ভব। টানা ১৬ ঘণ্টা উড়তে সক্ষম ড্রিমলাইনারে অন্যান্য বিমানের তুলনায় ২০ শতাংশ কম জ্বালানির প্রয়োজন হবে।