৫ সপ্তাহের জন্য পাস্তুরিত দুধ বিক্রয়ে নিষেধাজ্ঞা

প্রিন্ট

বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশন (বিএসটিআই) অনুমোদিত ১৪ কোম্পানির পাস্তুরিত দুধ বিক্রয়ে পাঁচ সপ্তাহের নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন হাইকোর্ট। দুধে বিষাক্ত সিসার উপস্থিতি পাওয়ার পর এসব কোম্পানিকে দুধ উৎপাদন ও সরবরাহ না করারও আদেশ দিয়েছেন আদালত। পাশাপাশি জনগণকে পাস্তুরিত দুধ কেনা ও খাওয়ার ক্ষেত্রে সতর্ক থাকার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

বাজারে থাকা ১৪ কোম্পানির পাস্তুরিত দুধ চারটি প্রতিষ্ঠানের ল্যাবে পরীক্ষা করানোর পর সেই প্রতিবেদন গতকাল হাইকোর্টে জমা পড়লে বিচারপতি সৈয়দ রেফাত আহমেদ ও বিচারপতি মো. ইকবাল কবিরের বেঞ্চ রুলসহ এ আদেশ দেন।

আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী, ১৫ থেকে ১৭ জুলাইয়ের মধ্যে উৎপাদিত বিভিন্ন ব্র্যান্ডের পাস্তুরিত দুধ বাজার থেকে সংগ্রহ করে পরীক্ষা করেছে বিএসটিআই। আদালতে জমা দেয়া পরীক্ষার ফলাফলে দেখা গেছে, সংগ্রহ করা সব দুধের নমুনাতেই সহনীয় মাত্রার অতিরিক্ত সিসার উপস্থিতি রয়েছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি মাত্রায় সিসা পাওয়া গেছে সেফ মিল্কে, প্রতি কেজিতে দশমিক ৩৫৬ মিলিগ্রাম।

যে ১৪ কোম্পানির পাস্তুরিত দুধ বিক্রয়ে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন আদালত: উৎপাদন, সরবরাহ ও বিক্রয়ে নিষেধাজ্ঞা পাওয়া পাস্তুরিত দুধের ব্র্যান্ডগুলো হলো: বাংলাদেশ দুগ্ধ উৎপাদনকারী সমবায় সমিতি লিমিটেডের মিল্ক ভিটা, আফতাব মিল্ক অ্যান্ড মিল্ক প্রডাক্ট লিমিটেড, আকিজ ফুড অ্যান্ড বেভারেজ লিমিটেডের ফার্মফ্রেশ মিল্ক, ব্র্যাক ডেইরি অ্যান্ড ফুড প্রজেক্টের আড়ং ডেইরি, প্রাণ ডেইরি লিমিটেডের প্রাণ মিল্ক, ড্যানিশ ডেইরি ফার্ম লিমিটেডের আয়রান, ইছামতী ডেইরি অ্যান্ড ফুড প্রডাক্টের পিউরা, ইগলু ডেইরি লিমিটেডের ইগলু, উত্তরবঙ্গ ডেইরির মিল্ক ফ্রেশ, শিলাইদহ ডেইরির আল্ট্রা, পূর্ব বাংলা ডেইরি ফুড ইন্ডাস্ট্রিজের আরওয়া, তানিয়া ডেইরি অ্যান্ড ফুড প্রডাক্টসের সেইফ, বার আউলিয়া ডেইরি মিল্ক অ্যান্ড ফুডস লিমিটেডের ডেইরি ফ্রেশ ও আমেরিকান ডেইরি লিমিটেডের মো।

বিএসটিআইয়ের অনুমোদন নিয়ে এসব কোম্পানি পাস্তুরিত দুধ উৎপাদন ও বিক্রি করে আসছিল। হাইকোর্টের এ আদেশের ফলে পাঁচ সপ্তাহের জন্য দেশে কোম্পানিগুলোর পাস্তুরিত দুধ বিক্রির সুযোগ থাকল না।

মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর উপাদান থাকায় বিএসটিআই অনুমোদিত ১৪ কোম্পানির পাস্তুরিত দুধ উৎপাদন, সরবরাহ, বিপণন ও বিতরণ এবং কেনা বা খাওয়া পাঁচ সপ্তাহের জন্য বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। এ আদেশের ফলে এ পাঁচ সপ্তাহ দেশে বৈধভাবে পাস্তুরিত দুধ বিক্রির কোনো সুযোগ থাকল না।