বেসরকারি কনটেইনার ডিপোর চার্জ বাড়ছে

প্রিন্ট

আগস্টের শুরু থেকে পণ্য রাখা বাবদ চার্জ বৃদ্ধির ঘোষণা দিয়েছে বেসরকারি কনটেইনার ডিপোর মালিকরা। এতে রপ্তানিতে নেতিবাচক প্রভাব পড়ার আশঙ্কা করছেন ব্যবসায়ীরা।

বাংলাদেশ ইনল্যান্ড কনটেইনার ডিপোস অ্যাসোসিয়েশন এর সভাপতি নুরুল কাইয়ুম খান বলেন, ৩ বছর পর আমরা ডিপোর চার্জ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি। তিনি বলেন, ইতিপূর্বে চট্টগ্রাম বন্দর চেয়ারম্যানের অনুরোধে শতকরা সাড়ে ৪২ ভাগ চার্জ বাড়ানোর স্থলে মাত্র ২০ ভাগ বাড়ানো হয়েছিল। বর্তমানে ১ আগস্ট থেকে বাকি সাড়ে ২২ ভাগ চার্জ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে।

তিনি বলেন, রপ্তানির সম্পূর্ণ অর্থাৎ বছরে ৩০ বিলিয়ন ডলারের সবগুলো বেসরকারি কনটেইনার ডিপোর মাধ্যমে হয়ে থাকে। তিনি বলেন, ১৮টি ডিপোতে প্রায় ৩৫ হাজার লোক কাজ করে। দেশের সবক্ষেত্রে ব্যয় বৃদ্ধির কারনে, ডিপোর চার্জ বুদ্ধি করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

সভাপতি আরো বলেন, বন্দর একটি কনটেইনার রাখার জন্য ৩ ডলার নেয় কিন্তু অফিসিয়ালি ১০০ টাকা নেওয়ার কথা থাকলেও আমরা ৭০/৮০ টাকার বেশি নেই না।

এদিকে ডিপো মালিকরা তাদের চার্জ বাড়ানোর ঘোষণা দেওয়ার প্রেক্ষিতে রপ্তানির ক্ষেত্রে এর বিরূপ দিক তুলে ধরেন বিজিএমইএর প্রথম সহসভাপতি এমএ সালাম। তিনি জানান, রপ্তানিখাত বিশেষত গার্মেন্টস সেক্টর বর্তমানে নাজুক অবস্থায় রয়েছে। ইতিমধ্যে শ্রমিকদের বেতন বেড়েছে। গ্যাসের দামও বাড়ানো হয়েছে। আগামীতে বিদ্যুতের দামও বাড়ানোর সম্ভাবনা রয়েছে। এই পরিস্থিতিতে গার্মেন্টস সেক্টর বিভিন্ন দেশের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করে টিকে থাকা কঠিন হয়ে পড়েছে। তারপর আবার চার্জ বৃদ্ধির ফলে রপ্তানিতে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে বলে আশঙ্কা করেছে ব্যবসায়ীরা।