হজ এবং ওমরাহর ভিসা ফি কমিয়েছে সৌদি সরকার

প্রিন্ট

হজ এবং ওমরাহ যাত্রীর পাশাপাশি দেশটিতে ঘুরতে যাওয়া পর্যটকদেরও ভিসা ফি কমিয়েছে সৌদি সরকার। সৌদি আরবের ভিশন-২০৩০’র অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একটি লক্ষ্য পূরনে আগামী ২০৩০ সালের মধ্যে ৩ কোটি হজ এবং ওমরাহ যাত্রীকে গ্রহণ করার লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে সৌদি আরব।

গত বুধবার সৌদি মন্ত্রিসভার গৃহীত নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী হজ এবং ওমরাহ যাত্রীর ভিসার ফি ২ হাজার সৌদি রিয়াল থেকে কমিয়ে মাত্র ৩০০ রিয়াল নির্ধারণ করা হয়েছে। একই সঙ্গে একাধিকবার ওমরাহ পালনের জন্য ভিসা ফিও বাতিল করেছে সৌদি সরকার।

মন্ত্রিপরিষদের নেয়া সিদ্ধান্তে ভিসার ধরন ও মেয়াদকাল নিয়ে একটি তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, আগের আইনে দেশটিতে ওমরাহ পালনের জন্য যাত্রীদের ভিসা ফি বাবদ টানা তিন বছর ২ হাজার সৌদি রিয়াল দিতে হতো। নতুন এই আইনের ফলে সেটি আর থাকছে না।

মোহাম্মদ বেনতেন বলেন, এই আইনের মাধ্যমে সৌদিতে ক্রমবর্ধমান হজ এবং ওমরাহ যাত্রীদের গ্রহণ সক্ষমতার প্রস্তুতির বিষয়টি উঠে এসেছে। পবিত্র স্থাপনাগুলোতে এবং মক্কা ও মদিনায় সেবা ব্যবস্থাপনা ও বিশাল অবকাঠামো প্রকল্প উন্নয়নের মাধ্যমে এই প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে।

ওমরাহ পালন, ভ্রমণ, ব্যবসা-বাণিজ্যসহ ভ্রমণ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য ক্ষেত্রও ভিজিট ভিসার আওতায় থাকবে। এ ভিসার জন্য ৩০০ রিয়াল ফি নির্ধারণ করা হয়েছে। এ ভিসায় রয়েছে ২ ধরনের সুযোগ। সিঙ্গেল এন্ট্রি, যার মেয়াদ ৩ মাস। এ ভিসায় দর্শনার্থী সৌদিতে ১ মাস অবস্থান করতে পারবে। আর মাল্টিপল এন্ট্রি, যার মেয়াদ ১ বছর। এ ভিসায় সৌদিতে অবস্থান করা যাবে ৩ মাস। শুধু হজ মৌসুমে মুসলমানদের ফরজ বিধান হজ পালনে এ ভিসা দেয়া হবে। এ ভিসার ফিও নির্ধারণ করা হয়েছে ৩০০ রিয়াল। ট্রানজিট ভিসা ৩ দিন তথা ৯৬ ঘণ্টা অবস্থান করা যাবে দেশটিতে। এ ভিসায় আকাশপথ, নৌপথ ও স্থল ব্যবহার করতে পারবে ভ্রমণকারীরা। তবে সৌদি আরব কর্তৃপক্ষ কত তারিখ থেকে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর করবে সে বিষয়ে কোন তথ্য জানায়নি।