হোটেল সোনারগাঁ -এ ‘নো পাসপোর্ট ভয়েস’ এর উদ্যোগে ‘ইন্টারন্যাশনাল ডে অফ দি গার্ল চাইল্ড’ পালন

প্রিন্ট

১১ অক্টোবর, ২০১৯ রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁ হোটেল-এ ‘নো পাসপোর্ট ভয়েস’ এর উদ্যোগে প্যানেল ডিসকাশন আয়োজনের মাধ্যমে ‘ইন্টারন্যাশনাল ডে অফ দি গার্ল চাইল্ড’ পালন করা হয়। প্রধান অতিথি পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আব্দুল মোমেনের পক্ষ থেকে অনুষ্ঠানের উদ্যোক্তাসহ বাংলাদেশের সকল নারীদের অভিনন্দন জানিয়ে মেয়েদের উন্নয়নে একযোগে কাজ করে যাওয়ার অঙ্গীকার করে বাণী পাঠ করেন ব্যারিস্টার ফাতেমা ওয়ারিতা আহসান। ব্যারিস্টার ফাতেমা ওয়ারিতা আহসানের (Founder No Passport Voice) সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন, ব্যারিস্টার প্রিয়া আহসান (co-founder no Passport Voice), ব্যারিস্টার প্রিয়াঙ্কা আহসান (Co-founder no Passport Voice) ভারত থেকে আগত ডঃ সঙ্গীতা গোস্বামী, রাধিকা গোস্বামী, প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের এক্সেস টূ ইনফর্মেশন ডিপার্টমেন্টের পরিচালক ফারজানা ইসলাম, গিজ বাংলাদেশের পরিচালক তাহেরা ইয়সামীন, সাবেক কূটনীতিক সোহরাব হোসেন এবং সিনিয়র এডভোকেট of supreme court of Bangladesh ব্যারিস্টার তানিয়া আমীর।

মিস মিয়া সেপ্পো বলেন গার্ল পাওয়ার শব্দটিকে অনেকে নারী-পুরুষের মধ্যে এক ধরণের শ্রেষ্টত্বের লড়াই বলে ভূল করেন। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে এর মাধ্যমে নারীকে তার স্বকীয় বৈশিষ্ট্যে আত্মবিশ্বাসী হওয়ার জন্য আহবান জানানো হয়েছে। নারী পুরুষের মিলিত প্রয়াসে সমাজ থেকে সকল বৈষম্য নিরসনে তিনি আহবান জানান। “নো পাসপোর্ট ভয়েস”এর অগ্রযাত্রাকে স্বাগত জানিয়ে এর উদ্যোক্তা তিন-বোন ব্যারিস্টার প্রিয়াঙ্কা আহসান, ব্যারিস্টার ফাতেমা ওয়ারিতা আহসান ও ব্যারিস্টার প্রিয়া আহসানকে তিনি অভিনন্দন জানিয়ে বলেন নারী শিশুসহ সমাজে পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর উন্নয়নে গৃহীত উদ্যোগে জাতিসংঘ তার ভূমিকা রেখে যাবে।

“নো পাসপোর্ট ভয়েস”, বাংলাদেশ ভিত্তিক একটি অলাভজনক প্রতিষ্ঠান। এসডিজির লক্ষ্য -২০৩০ অর্জন কাজ করে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি; যার মধ্যে অন্তর্ভুক্ত রয়েছে দারিদ্র্য হ্রাস, উন্নত স্বাস্থ্য ব্যবস্থা, জেন্ডার ইকুয়ালিটি, মানসম্পন্ন শিক্ষা, গ্রামীণ বাংলাদেশের উন্নয়ন ও জলবায়ু সংক্রান্ত পদক্ষেপ। “নো পাসপোর্ট ভয়েস ফাউন্ডেশন” প্রত্যেক ব্যক্তির বর্ণ, সামাজিক অবস্থান, সংস্কৃতি নির্বিশেষে সমানভাবে আচরণে মানুষকে উৎসাহিত বদ্ধপরিকর। প্রতিষ্ঠানটির স্লোগান হচ্ছে I am the voice, a voice of all, for all।

জাতিসংঘ স্বীকৃত আন্তর্জাতিক এই দিবসটি পালনে অংশীদার হিসেবে ছিল ঢাকা ব্যাংক লিমিটেড, ডোরেন পাওয়ার জেনারেশন লিমিটেড, অল লেডিস লীগ, আইকান হেলথ লন্ডন, ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অফ স্টোরি ইউএসএ, লোটাস বি ইউএসএ, মেগা কসমস ইন্ডিয়া, এ ইন সি নিউজ চ্যানেল ইন্ডিয়া, গ্লোবাল নিউজ নেটওয়ার্ক, ওয়ার্ল্ড নিউস ২৪/৭ ইন্ডিয়া ও ডিবনিয়ার গ্রূপ।