শীতে ত্বকের যত্নে খাদ্য তালিকায় নিয়মিত গাজর রাখুন

প্রিন্ট

শীতকালীন সবজি হিসেবে খাবারের তালিকায় অনেকে গাজর রাখতে খুব পছন্দ করেন। তরকারির সঙ্গে মিশিয়ে কিংবা গাজর কাঁচাও খাওয়া যায়। তবে যেভাবেই খান না কেন গাজরে রয়েছে নানা উপকারিতা। ভিটামিন ছাড়াও ত্বককে সুন্দর রাখতে এমনকি ক্যান্সার থেকে সুরক্ষা পেতেও গাজরের জুড়ি নেই।

আসুন এবার জেনে নিন গাজরে কী কী উপকারিতা আছে-

চোখের দৃষ্টিশক্তি বাড়ায়: গাজর খেলে দৃষ্টিশক্তি বৃদ্ধি পাবে। গাজরে রয়েছে বেটা ক্যারোটিন, যা চোখের দৃষ্টিশক্তি বাড়াতে সাহায্য করে। সেইসঙ্গে রাতের বেলায় অন্ধকারেও চোখের ভালো দেখার জন্য দরকারি এমন এক ধরনের বেগুনি পিগ্মেন্ট এর সংখ্যা বাড়িয়ে দিয়ে দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখতে সাহায্য করে গাজর।

ক্যানসারের ঝুঁকি কমায়: যারা নিয়মিত গাজর খান তাদের ক্যানসারের ঝুঁকি কম থাকে। গাজরে আছে ফ্যালক্যারিনল এবং ফ্যালক্যারাইনডিওল যা আমাদের শরীরে অ্যান্টি-ক্যানসার উপাদানগুলোকে রিফিল করে। তাই গাজর খেলে ব্রেস্ট, কোলন, ফুসফুসের ক্যানসার হওয়ার ঝুঁকি কম থাকে।

যৌবন ধরে রাখে: গাজর শুধু শরীরের জন্য ভালো তা নয়, এটি আমাদের জন্য অ্যান্টি-এজিং উপাদান হিসেবেও কাজ করে। এতে যে বেটা ক্যারোটিন আছে তা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করে আমাদের শরীরের ক্ষয়প্রাপ্ত সেলগুলোকে ঠিকঠাক করতে সাহায্য করে। এ ছাড়া এটি এজিং সেলগুলোর গতি ধীর করে, এতে যৌবনকে অধিক সময়ের জন্য ধরে রাখা সম্ভব হয়।

ত্বক ভালো রাখে: সুন্দর ত্বকের জন্যও গাজর খেতে পারেন। এটা আপনার ত্বককে ভেতর থেকে সুন্দর করে তুলতে সাহায্য করবে। এতে বিদ্যমান ভিটামিন এ ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ত্বকের রোদে পোড়া ভাব দূর করবে। সেইসঙ্গে ত্বকের অযাচিত ভাঁজ পড়া, কালো দাগ, ব্রন, ত্বকের রঙের অসামাঞ্জসসতা ইত্যাদি দূর করে আপনাকে সুন্দর হয়ে উঠতে সাহায্য করবে।

হৃদপিণ্ড ভালো রাখে: হৃৎপিণ্ড ভালো রাখতেও কাজ করে গাজর। এর ক্যারোটিনয়েডগুলো হৃৎপিণ্ডের নানা অসুখের ওষুধ হিসেবে কাজ করে। এ ছাড়া নিয়মিত গাজর খেলে হৃৎপিণ্ডে রোগের ঝুঁকি অনেক কমে আসে।

দাঁত সুন্দর রাখে: সুন্দর ও সুস্থ সবল দাঁত কে না চায়। এ জন্য এখন থেকেই নিয়মিত গাজর খাওয়া শুরু করুন। এটি আপনার দাঁত ও মুখ গহ্বর পরিষ্কার রাখে। গাজর মুখের প্ল্যাক ও খাবারের উপাদান মুখ থেকে দূর করে টুথ পেস্ট ও টুথ ব্রাশের মতোই। এ ছাড়াও গাজরের মিনারেলগুলো দাঁত মজবুত থাকতে সাহায্য করে অনেকাংশেই।