বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেরিটাইম ইউনিভার্সিটির মেরিটাইম শীর্ষক আন্তর্জাতিক সেমিনার আয়োজন

প্রিন্ট

আজ ঢাকাস্থ হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে “An Outlook for Sustainable Maritime Development and Governance: Challenges and Way Ahead”- শীর্ষক দিনব্যাপী এক আন্তর্জাতিক সেমিনার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেরিটাইম ইউনিভার্সিটি, বাংলাদেশ (বিএসএমআরএমইউ) কর্তৃক আয়োজন করা হয়েছে। উক্ত সেমিনারের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় পরিকল্পনা মন্ত্রী জনাব এম. এ. মান্নান এমপি। এছাড়াও, মাননীয় শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী, এমপি ও মাননীয় নৌ বাহিনী প্রধান অ্যাডমিরাল আওরঙ্গজেব চৌধুরী বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। সেমিনারে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর রিয়ার এডমিরাল এম খালেদ ইকবাল।

প্রধান অতিথি তাঁর বক্তব্যে বাংলাদেশের টেকসই উন্নয়নের জন্য দেশের সুনীল অর্থনীতির অপার সম্ভাবনা নিশ্চিতকল্পে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ব্লু-ইকোনমি পলিসি বাস্তবায়নে মেরিটাইম গবেষনা ও শিক্ষার উপর গুরুত্বারোপ করেন এবং এক্ষেত্রে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেরিটাইম ইউনিভার্সিটি বিশেষ ভুমিকা পালন করবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। মাননীয় শিক্ষা উপমন্ত্রী তার বক্তব্যে মেরিটাইম ক্ষেত্রে বিভিন্ন সংকট মোকাবেলায় যুগোপযোগী পদক্ষেপ গ্রহন ও এক্ষেত্রে দক্ষ জনশক্তি গঠনে মেরিটাইম খাতে শিক্ষার বিকল্প নেই বলে উল্লেখ করেন এবং দেশের সুবিশাল সমুদ্রসীমাকে কাজে লাগিয়ে দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন সম্ভাবনাকে তরান্বিত করার জন্য বিভিন্ন মেরিটাইম খাতের উপর গুরুত্বারোপ করার প্রতি আহবান জানান। নৌ-বাহিনী প্রধান তার বক্তব্যে ২০১৩ সালে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেরিটাইম ইউনিভার্সিটি, বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠাকে দেশের মেরিটাইম খাত উন্নয়নের অন্যতম মাইলফলক হিসেবে চিহ্নিত করেন। মেরিটাইম উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত ও দক্ষ জনবল সৃষ্টির লক্ষ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান ও ভবিষ্যত কার্যক্রমের উপর আলোকপাত করার পাশাপাশি সেমিনারে উপস্থিত মেরিটাইম পেশাজীবি, শিক্ষাবিদ, গবেষক, নীতি নির্ধারক ও স্টেকহোল্ডারদেরকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর রিয়ার এডমিরাল এম খালেদ ইকবাল ধন্যবাদ জানান।

সেমিনারে ভারত, অস্ট্রেলিয়া, ফ্রান্স, নেদারল্যান্ড, সিঙ্গাপুর, ফিলিপাইন, ইংল্যান্ড, শ্রীলংকা, সুইজারল্যান্ড, মালয়েশিয়া এবং স্বাগতিক বাংলাদেশের মেরিটাইম বিশেষজ্ঞ ও শিক্ষাবিদগণ তাদের মূল্যবান প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। সেমিনারে শিক্ষা মন্ত্রনালয় ও ইউজিসি সহ অন্যন্য বিভিন্ন মন্ত্রনালয় ও সরকারী প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিবৃন্দ, উচ্চপদস্থ সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তাবৃর্ন্দ, বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় হতে আগত প্রতিনিধিবৃন্দ, মেরিটাইম সংস্থা এবং মেরিটাইম ইউনিভার্সিটির শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তাগণ অংশগ্রহণ করেন।

সেমিনারের মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন গ্রীনউইচ ইউনিভার্সিটির প্রফেসর ও গ্লোবাল মেরিটাইম সিকিউরিটি এন্ড ডিফেন্স-এর উপদেষ্টা প্রফেসর ক্রিস বেলামি। তিনি তার প্রবন্ধে ব্লু-ইকোনমি এবং বঙ্গোপসাগরের ভবিষ্যত উন্নয়নের সম্ভাবনার উপর আলোকপাত করেন।

ব্রিটেনের সাউদা¤পটন ইউনিভার্সিটির প্রফেসর এন্ড্রু সার্ডি সার্বিক সমুদ্র ব্যবস্থাপনায় বিশ্বব্যাপী প্রচলিত মেরিটাইম আইন এবং তার উপযুক্ত ব্যবহারের মাধ্যমে বাংলাদেশ পাশ্ববর্তী দেশের সাথে সমুদ্র সীমানা সমাধানে সফল হয়েছে বলে তার প্রবন্ধে তুলে ধরেন। এছাড়াও প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন, যুক্তরাজ্যের পোর্টসমাউথ ইউনিভার্সিটির প্রফেসর ড. পিয়েরে ফেইলার। প্রফেসর ফেইলার তার প্রবন্ধে সুনীল অর্থনীতি ও সমুদ্র প্রশাসনের সমন্বয়ে গঠিত নতুন এক ধারনা হিসেবে ব্লু-গভার্ন্যান্স এর কথা তুলে ধরেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূতত্ব বিভাগের অধ্যাপক ড. বদরুল ইমাম বঙ্গোপসাগরে প্রাকৃতিক জ্বালানী উত্তোলনের বর্তমান অবস্থা উল্লেখ করতঃ এর ভবিষ্যত সম্ভাবনার উপর তার প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। আন্তর্জাতিক স¤পর্ক বিভাগের প্রফেসর লাইলুফার ইয়াসমিন তার প্রবন্ধে বঙ্গোপসাগর তীরবর্তী দেশসমূহের মধ্যে একটি সুষ্ঠু আঞ্চলিক সামুদ্রিক যোগাযোগ নিশ্চিতকল্পে সামুদ্রিক নিরাপত্তা বজায় রাখার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহনের প্রতি আলোকপাত করেন। ভারতের গোয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিপার্টমেন্ট অব বায়োটেকনোলজির প্রফেসর ড. সাভিতা এস কারকার স্বাস্থ্যসেবা পণ্য উদ্ভাবনে সামুদ্রিক প্রাকৃতিক স¤পদের সম্ভাবনার উপর তার প্রবন্ধে আলোকপাত করেন।

সেমিনারের বক্তাগণ বিশ্বব্যাপী মেরিটাইম ক্ষেত্রে টেকসই ব্যস্থাপনার অংশ হিসেবে বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক এবং টেকসই উন্নয়নের সাথে দেশের মেরিটাইম ভবিষ্যত স¤পর্কিত নানাবিধ সম্ভাবনার কথা চিহ্নিত করেন।
দিনব্যাপী এই সেমিনারে মোট ০৩ টি সেশনে বক্তারা যথাক্রমে- আঞ্চলিক সমুদ্র যোগাযোগ এবং নিরাপত্তা, সামুদ্রিক স্বাস্থ্য ও প্রশাসন এবং সামুদ্রিক প্রযুক্তি ও প্রাকৃতিক স¤পদের সর্বোচ্চ প্রয়োগ বিষয়ে প্রবন্ধ উপস্থাপন ও আলোচনা করেন। পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের মেরিটাইম অ্যাফেয়ার্স ইউনিটের মাননীয় সচিব রিয়ার এডমিরাল (অবঃ) এম খোরশেদ আলম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক স¤পর্ক বিভাগের প্রফেসর ড. ইমতিয়াজ আহমেদ ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেরিটাইম ইউনিভার্সিটির প্রফেসর ড. আফতাব আলম খান সেশন চেয়ার হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন