অতিরিক্ত মোবাইল, কম্পিউটারে ও টিভি দেখলে শিশুদের যেসব ক্ষতি হয়

কর্মব্যস্ততার চাপে বেশির ভাগ বাবা-মায়েরই সন্তানকে তেমন সময় দিতে পারেন না। তাই শিশুর খেলাধুলার তেমন সুযোগ থাকে না। কারণ তাকে মাঠে বা পার্কে নিয়ে যাওয়ার কেউ নেই। ফলে বদ্ধ ঘরে স্মার্টফোন, টিভি, কম্পিউটারের সঙ্গেই কাটে এখনকার বেশির ভাগ শিশুর শৈশব।

তাই বর্তমানে স্মার্টফোন, টিভি আর কম্পিউটারের গেম খেলে সময় কাটাতেই বাচ্চারা বেশি অভ্যস্ত হয়ে পড়েছে যা তাদের ভবিষ্যতের জন্য অত্যন্ত বিপজ্জনক! বেশি সময় মোবাইল বা টিভির স্ক্রিন শিশুদের ওপর কতটা কুপ্রভাব বিস্তার করে, সে সম্পর্কে কমবেশি সবাই সচেতন। অতিরিক্ত টিভি দেখলে বা কম্পিউটার স্ক্রীনের সামনে বসে থাকলে শিশুদের কী কী ক্ষতি হয় তা জেনে নিন।

– ওজন বৃদ্ধি পায়: দিনের বেশির ভাগ সময় একভাবে বসে টেলিভিশন দেখা বা কম্পিউটার নিয়ে বসে থাকলে শিশুর ওজন বাড়তে পারে। এর ফলে, বিভিন্ন রোগ দেখা দেয়।

– পড়াশোনায় ক্ষতি হয়: কম্পিউটারে গেম খেলা বা টিভি দেখার জন্য অনেক সময় ব্যয় করার ফলে অন্যান্য কাজে অংশগ্রহণের অভাব হয়। বাচ্চারা মাঝে মাঝে টিভির দেখার জন্য স্কুলের হোমওয়ার্ক করা এড়িয়ে যায়। ফলে, তাদের পড়াশোনার ক্ষতি হয়।

– শরীরের রক্ত ​​সঞ্চালন কমে যায়: অনেকটা সময় এক জায়গায় বসার ফলে শরীরে রক্ত ​​সঞ্চালন কমে যায়। রক্ত ​​সঞ্চালন কম হয়ে যাওয়ার ফলে নানা সমস্যা হতে পারে। যেমন রক্তের জমাট বেঁধে যাওয়া বা পেশীতে ক্রাম্প হয়ে যাওয়া ইত্যাদি।

– হার্ট ও চোখের সমস্যা দেখা দেয়: যেসব শিশু খুব বেশি টিভি দেখে বা কম্পিউটার স্ক্রীনের সামনে বসে থাকলে তাদের চোখ ও হার্টের সমস্যা বাড়ে। অল্প দিনেই চোখে চশমা হয়ে যায়।

– মাথা ব্যাথা এবং শরীর ব্যথা: সারাদিন কম্পিউটারের সামনে এক ভাবে বসে থাকার ফলে শরীরের নানা জায়গায় ব্যাথা হয়ে যায়। দীর্ঘক্ষণ একদিকে তাকিয়ে থাকার জন্যে ঘাড়ও ব্যথা করে। চোখের উপর চাপ পড়ার ফলে মাথাও ব্যাথা হয়ে যায়। আর কম্পিউটারের সামনে দীর্ঘক্ষণ বসে থাকলে শরীর এবং মনের বিশ্রামের সময় কমে যায়। তাই এর ফলে মাথা ব্যাথা করতে শুরু করে।

উপরিউক্ত কারণগুলো থেকে বোঝাই যাচ্ছে যে, শিশুদের টিভি দেখা যেমন প্রয়োজনীয় তেমনই অতিরিক্ত টিভি দেখা অত্যন্ত খারাপ। তাই পরিবারের বড়দের সবসময় খেয়াল রাখতে হবে যে, বাচ্চারা যেন অতিরিক্ত টিভি বা কম্পিউটার না দেখে। পাশাপাশি এটাও খেয়াল রাখতে হবে যে, বাচ্চারা যখন টিভি দেখবে তখন যাতে তারা শিক্ষামূলক অনুষ্ঠান বা শিশু সংক্রান্ত কোনো অনুষ্ঠানই দেখে।

image_printপ্রিন্ট করুন
শেয়ার করুনঃ