পাসপোর্ট ও এমআরপির কার্যক্রম স্থগিত

করোনা ভাইরাসের বিস্তাররোধে জনসমাগমে নিষেধাজ্ঞা জারির প্রেক্ষাপটে পাসপোর্ট ও মেশিন রিডেবল পাসপোর্টের (এমআরপি) বায়োমেট্রিক কার্যক্রম স্থগিত রেখেছে পাসপোর্ট ও ইমিগ্রেশন অধিদপ্তর। তবে হজযাত্রীদের প্রসেসিং এবং জরুরি প্রয়োজনে পাসপোর্ট প্রদান কার্যক্রম সীমিত আকারে চলবে।

আজ সোমবার (২৩ মার্চ) সকাল থেকে নতুন পাসপোর্টের জন্য আবেদন নেওয়া বন্ধ করা হয়েছে। তবে আগে যারা পাসপোর্ট করতে দিয়েছেন, তারা পাসপোর্ট পাবেন। তাদের নির্ধারিত সময়েই পাসপোর্ট সংগ্রহ করতে বলা হয়েছে।

পাসপোর্ট ও ইমিগ্রেশন অধিদফতরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল সাকিল আহমেদ এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, বর্তমানে বাংলাদেশে দুই ধরনের পাসপোর্ট ইস্যু হয়। একটি ই-পাসপোর্ট এবং অপরটি মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট (এমআরপি)। এই দুই ধরনের পাসপোর্টেই বায়োমেট্রিক বা ফিঙ্গারপ্রিন্ট বাধ্যতামূলক। সেখানে হ্যান্ডস গ্লাভস নয়, সরাসরি হাত দিয়ে কাজ করতে হয়। এতে যেমন করোনার ঝুঁকি রয়েছে, তেমনি ফিঙ্গারপ্রিন্ট রিডার নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। তাই নতুন পাসপোর্টের ইস্যু করার প্রক্রিয়া বন্ধ থাকবে। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে বায়োমেট্রিক কার্যক্রম আবারও শুরু হবে। আমরা নির্দিষ্ট কোনও তারিখ উল্লেখ করিনি। পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করবে কতদিন এভাবে রাখা হবে।

মহাপরিচালক বলেন, বায়োমেট্রিক নেয়া বন্ধ থাকলেও ই-পাসপোর্টের জন্য অনলাইনে আবেদন করা যাবে। তবে বায়োমেট্রিকের জন্য অ্যাপয়েনমেন্ট পেতে সময় লেগে যাবে।

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বে মৃত্যুর সংখ্যা ১৪ হাজার ৭৩০ জন। এ পর্যন্ত বিশ্বের ১৮৮টি দেশ ও অঞ্চলে কোভিড-১৯ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে এছাড়া চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৯৭ হাজার ৩৪৪ জন।

বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত ২৭ জন আক্রান্তের খবর পাওয়া গেছে। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে দুইজনের। এরই মধ্যে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে সভা-সমাবেশ ও গণজমায়েতের ওপর।