রাজধানীর পশুরহাটে জালনোট শনাক্তে বসছে ২৪ বুথ

ঈদ-উল আজহা উপলক্ষে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের বিভিন্ন স্থানের কোরবানির পশুর হাটে জালনোট শনাক্তকরণ ২৪টি বুথ বসানো হবে। এছাড়া সারাদেশের বিভিন্ন স্থানে পশুর হাটেও জালনোট শনাক্তকরণ বুথ বসানো হবে।

গতকাল (৩০ জুলাই) বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রজ্ঞাপনে কোরবানির পশুর হাটে জালনোট শনাক্তকরণ বুথ বসানোর জন্য সংশ্লিষ্ট ব্যাংকগুলোকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের কর্মকর্তারা ক্রেতা-বিক্রেতাদের জালনোট শনাক্তকারী মেশিনের সহায়তায় হাট শুরুর দিন থেকে ঈদের আগ রাত পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে পশু ব্যবসায়ীদের বিনা খরচে নোট যাচাই সংক্রান্ত সেবা দিতে হবে। ঢাকার বাইরে যেসব জেলায় বাংলাদেশ ব্যাংকের অফিস রয়েছে, সেখানে সংশ্লিষ্ট সিটি কর্পোরেশন বা পৌরসভার অনুমোদিত পশুর হাটগুলোতে অনুরূপ ব্যবস্থায় ক্রেতা-বিক্রেতাদের জালনোট শনাক্তকরণে সহায়তা দেয়ার জন্যও কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা রয়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের অফিস নেই এমন জেলাগুলোতে সিটি কর্পোরেশন, পৌরসভা ও থানা-উপজেলার অনুমোদিত পশুর হাটে বিভিন্ন ব্যাংকের এতদসংক্রান্ত দায়িত্ব বণ্টনের জন্য সোনালী ব্যাংকের চেস্ট শাখাগুলোকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের শাখাগুলোও যাতে পশুর হাটগুলোতে নোট যাচাই সংক্রান্ত সেবা দেয়, সে বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

বুথ স্থাপনে প্রয়োজনীয় সহযোগিতার জন্য সংশ্লিষ্ট সিটি কর্পোরেশন, জেলা মিউনিসিপ্যালিটি এবং উপজেলা নির্বাহী অফিসার/সংশ্লিষ্ট পৌরসভা কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করা নির্দেশনা রয়েছে প্রজ্ঞাপনে। বুথে নোট যাচাইকালে কোন জালনোট ধরা পড়লে, সেক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বুথে ব্যাংকের নাম ও তার সঙ্গে ‘জালনোট শনাক্তকরণ বুথ’ উল্লেখ করে ব্যানার বা নোটিস প্রদর্শন করা। এছাড়া ব্যাংক নোটের নিরাপত্তা বৈশিষ্ট্য সম্বলিত ভিডিও চিত্র ব্যাংকের শাখাগুলোতে ঈদের আগে পাঁচ কর্মদিবস ব্যাপী গ্রাহকদের জন্য স্থাপিত টিভি মনিটরগুলোতে পুরো ব্যাংকিং সময় পর্যন্ত প্রদর্শন করা হবে।

image_printপ্রিন্ট করুন
শেয়ার করুনঃ